Mountain View

আফ্রিদির ব্যাটিং তান্ডব-৯৬ ফিরে এলো ১৭তে

প্রকাশিতঃ আগস্ট ২৩, ২০১৭ at ১০:৪৮ পূর্বাহ্ণ

জুবায়ের আহমেদ: আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে আফ্রিদি অবসর নিয়েছেন ইতিমধ্যে। বর্তমানে খেলছেন দেশ বিদেশের ঘরোয়া জনপ্রিয় লীগগুলোতে। কিন্তু ব্যাটে বলের ধার কমেনি এখনো। ব্যাটে ধারাবাহিক হতে না পারলেও যখন জ্বলে উঠেন, বোলারদের উপর তান্ডব চালাতে ভুল করেন না।

ইংল্যান্ডের কাউন্ট্রি ক্রিকেটের জনপ্রিয় ন্যাটওয়েস্ট টি২০ ব্লাস্টে গতকাল রাতে ১ম কোয়াটার ফাইনালে টসে জিতে ফিল্ডিং নেয় ডার্বিশায়ার। আফ্রিদির দল হাম্পাশার সবাইকে অবাক করে দিয়ে নিয়মিত ৭/৮ নাম্বার পজিশনে ব্যাট করা আফ্রিদিকে ওপেনিংয়ে পাঠান। আর ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে ভুল করেননি বুম বুম আফ্রিদি। ডার্বিশায়ারের বোলারদের উপর তান্ডব চালিয়ে মাত্র ৪৩ বলে ৭ ছয় ও ১০ চারে ১০১ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন। ৪২ বলে সেঞ্চুরী পূর্ণ করেন আফ্রিদি।ভিন্সের ৫৫ ও বেইলির ২৭ রানের সুবাদে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৪৯ রানের পাহাড় গড়ে হাম্পাশায়ার।

২৫০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ডাউসন ও কাইল এবোট এর বোলিং তোপে পড়ে ইনিংসের ১ বল বাকি থাকতে মাত্র ১৪৮ রানে অলআউট হয় ডার্বিশায়ার। ডাউসন ৩, কাইল এবোট ৩ উইকেট শিকার করেন। ৩ ওভারে ২৮ রান দিয়ে উইকেটশুণ্য থাকেন আফ্রিদি। বল হাতে উইকেট না পেলেও ১০১ রানের ইনিংস খেলেন ম্যাচসেরা হন তিনি। টি২০ ক্রিকেটে এটি আফ্রিদির প্রথম শতক।

১৯৯৬ সালে নিজের ২য় আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচে শ্রীলংকার সাথেও ওপেনিংয়ে নেমে ব্যাট হাতে ঝড় তুলেন আফ্রিদি। লংকানদের বোলারদের উপর চড়াও হয়ে মাত্র ৩৭ বলে ওয়ানডে ক্রিকেটের রেকর্ড সেঞ্চুরী করেন। তারপর ব্যাটে হাতে ধারাবাহিক না হওয়ায় বিভিন্ন পজিশনে ব্যাট করতে হয়েছে আফ্রিদিকে। অবশ্য আফ্রিদি যেভাবে ব্যাট চালান, এভাবে ব্যাট করে ধারাবাহিক হওয়া কখনোই সম্ভব নয়। তবে যে ম্যাচে রান করেন বোলারদের উপর স্টীমরোলার চালাতে ভুল করেন না তিনি।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View