Mountain View

রোহিঙ্গা মানবিক বিপর্যয় রোধে ভূমিকার জন্য প্রধানমন্ত্রী নোবেল শান্তি পুরস্কার ডিজার্ভ করেন

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৭ at ১০:৩১ পূর্বাহ্ণ

জাহিদুল ইসলাম, বিডি টোয়েন্টিফোর টাইমস :  রোহিঙ্গা ইস্যুতে মানবিক বিপর্যয় রোধে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নোবেল শান্তি পুরস্কার পাওয়া উচিৎ বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি মেহেদী হাসার রনি। বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে বসে বিডি টোয়েন্টিফোর টাইমসকে একথা জানান ছাত্রলীগের অন্যতম জনপ্রিয় এই ছাত্রনেতা।  সেই সাথে মিয়ানমারে রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের উপর নারকীয় হত্যা ও ধ্বংসজজ্ঞের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অংসান সূচীর নোবেল শান্তি পুরস্কার ফেরত নেয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন।

আলাপচারিতায় তিনি আরও বলেন,‘ রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ যে পরিমান উদারতা দেখিয়েছে এর কোন তুলনা হয় না। মানবতার খাতিরে বিশ্বের কোন দেশই এত বিশাল সংখ্যার মানুষদের নিজ দেশে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় দিতো না। আমরা চাইলে পারতাম মিয়ানমারকে কড়া জবাব দিতে। ২০০০ সালে  একই ইস্যূতে শেখ হাসিনা সরকার দাতভাঙা জবাবও দিয়েছিলো। কিন্তু এবার প্রেক্ষাপট ভিন্ন। এবার মিয়ানমারের সমর্থনে বিশ্বের অন্যতম দুটি বৃহৎ শক্তির দেশ চীন ও ভারত। বাংলাদেশ তাই কৌশলগত কারণেই কোন ঝুঁকি নিতে চায়নি।

এরপরও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশ্ব শান্তির দূত হিসেবে নিজেকে মেলে ধরেছেন। না হলে নাফ নদী আর বঙ্গোপসাগর ইতিহাসের জঘন্যতম মানবিক বিপর্যয়ের সাক্ষী হতো। সেখানে অবশ্যই শাান্তি আর মানবতার কারণে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা তাৎপর্যপূর্ণ। আমি মনেকরি রোহিঙ্গা গণহত্যার নায়ক অং সান সূচীর নোবেল পুরস্কার কেড়ে নিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দেয়া উচিৎ। তিনি যদি মিয়ানমার সীমান্তে এতটা উদারতা না দেখাতেন তাহলে নাফ নদী আর বঙ্গোপসাগর মৃত্যুউপত্যকায় পরিণত হয়ে যেত। সে অনাকাঙ্খিত বিষয়টি বিচক্ষণতা ও দূরদর্শীতার মাধ্যমে প্রতিহত করার জন্য হলেও শেখ হাসিনা নোবেল শান্তি পুরস্কার ডিজার্ভ করেন।’

এ সম্পর্কিত আরও

no posts found