মুক্তিপনের জন্য যুবক অপহরন অতঃপর মিলল লাশ-আটক ২

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৭ at ১০:০৮ অপরাহ্ণ

মোঃ জহির রায়হান,সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি উপজেলায় নিখোঁজ হওয়ার দুদিন পর মনতোষ কুমার সরকার (২৮) নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার ভোরে উপজেলার সেন ভাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের বিশ্বাসবাড়ী হুরাসাগর নদীতে কচুরিপানার ভেতর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিহতের চাচাতো ভাই অচিন্ত্য কুমার সরকার জানান, সোমবার রাতে প্রতিবেশী সুজন কুমারের সঙ্গে পিকনিকে যাওয়ার কথা বলে বলরামপুর গ্রামে শিপনদের বাড়িতে যায় মনতোষ। এরপর সে আর ফিরে আসেনি।

তবে রাত তিনটার দিকে তার আরেক ভাই কৃষ্ণ কুমারের মোবাইল নম্বরে ফোন করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। মুক্তিপণের টাকা কিভাবে, কোথায় দিতে হবে তা নিয়ে সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত দফায় দফায় কথা হয়।

তারপরও নিখোঁজ মনতোষের সন্ধান মেলেনি। পরে দুপুরের দিকে বেলকুচি থানায় অভিযোগ করা হয়। নিহত মনোতোষ চন্দ্র সরকার (২৮) বেলকুচি উপজেলার সেন ভাঙ্গাবাড়ী ইউনিয়নের খাস সোনামুখী গ্রাম এর মংলা চন্দ্র সরকারের ছেলে।

আটককৃতরা হলেন, কামারখন্দ উপজেলার বল্লবরামপুর এলাকার গিয়াস উদ্দিনের ছেলে শিপন সরকার (৩২) ও বেলকুচি উপজেলার খাস সোনামুখী এলাকার দেওয়ান কুমার সরকারের ছেলে সুজন কুমার সরকার (২৩)। বেলকুচি থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল আলীম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, মনতোষ সোমবার রাতে নিখোঁজ হন।

মঙ্গলবার দুপুরে তার চাচাতো ভাই অচিন্ত্য কুমার থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে শিপন ও সুজনকে রাতেই আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যমতে বুধবার সকালে বিশ্বাসবাড়ী হুড়াসাগর নদীতে কচুরি পানার ভেতরে লুকানো অবস্থায় মনতোষের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এ সম্পর্কিত আরও