Mountain View

বিশ্বের একনম্বর দলকে ‘পরামর্শ’ দিলেন সাকিব

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৭ at ৮:১৫ পূর্বাহ্ণ


স্পোর্টস ডেস্ক,বিডি টোয়েন্টিফোর টাইমসঃ কেন জানি বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে বরাবরই নেতিবাচক ভারতের অধিকাংশ মিডিয়া। শুধু মিডিয়াই নয়, বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে নেতিবাচক সেদেশের বেশিরভাগ মানুষও । ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইডেন ম্যাচে বাংলাদেশকে রেখে পাকিস্তানকে সমর্থন করেছিলেন গ্যালারির ৯৫ শতাংশ দর্শক।গত মাসের শেষ দিকে ঢাকাতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দারুণ এক জয় পায় বাংলাদেশ। কিন্তু ওই জয় নিয়েও নেতিবাচক খবর পরিবেশন করেছিল কলকাতা থেকে প্রকাশিত একটা বাংলা মিডিয়া। ওই রিপোর্টের সারমর্ম ছিল, ‘উইকেটের কারসাজি করে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে বাংলাদেশ।’কদিন বিরতি দিয়ে ওই বাংলা মিডিয়া আরেকটা নেতিবাচক খবর পরিবেশন করলো।এবার হেয় করা হয়েছে বাংলাদেশি অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে, দক্ষিণ আফ্রিকা না গিয়ে যিনি এখন দেশে রয়েছেন ছুটিতে। সম্প্রতি একটি মিডিয়াকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সাকিব। এক পর্যায়ে রিপোর্টার প্রশ্ন করেছেন ভারত অস্ট্রেলিয়া সিরিজ নিয়ে।

উত্তরে ভারতের জন্য দুই একটা পরামর্শ দিয়ে ফেলেছেন সাকিব। গণ্ডগোল এখানেই। এখানেই যতো আপত্তি ভারতীয় ওই মিডিয়ার তথা ভারতীয়দের। হোন না কেন তিনি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার, বাংলাদেশি তো। বাংলাদেশ দলের কোনো খেলোয়াড় ভারতের মতো পরাক্রমশালী দলকে উপদেশ দিতে যাবে কোনো সাহসে, কোন যোগ্যতায়? এমনটাই বলতে চেয়েছে ওই মিডিয়া।
‘বিশ্বের একনম্বর দলকে ‘পরামর্শ’দিয়ে হাসির খোরাক সাকিব, আপনিও হাসবেন’- এই শিরোনামে করা ওই রিপোর্টের কিছু অংশ তুলে ধরা হলো-‘কিছুটা অযাচিত ভাবে অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর টিপস দিয়ে দিলেন সাকিব আল হাসান। বর্তমানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিশ্রামে রয়েছেন তারকা বাংলাদেশি অলরাউন্ডার। ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ চলাকালীনই তিনি কীনা বিরাট কোহলিদের ‘পরামর্শ’ দিলেন অস্ট্রেলিয়াকে কীভাবে হারাতে হবে!

এক সাক্ষাৎকারে সাকিব আল হাসান জানান, ‘ভারত সবসময় একটা আলাদা সুবিধা পাবে। অস্ট্রেলিয়া তুলনামূলকভাবে কিছুটা চাপে রয়েছে। দেখুন, ভারতের বোলিং লাইন আপ যথেষ্ট শক্তিশালী। এখন খুব ভালো ছন্দেও রয়েছে। ফলে ব্যাটিংয়ে কোনও ভুলভ্রান্তি যেন না হয়। এই ব্যাপারটা মাথায় রাখলেই, ভারতকে আর কোনও চাপ নেওয়ার দরকার নেই।’পাশাপাশি তিনি আরও বলেছেন, ‘ঘরের মাটিতে ভারত বরাবরই দুর্র্ধষ ফর্মে থাকে। আমি আর বেশি কিছু বলব না। কারণ ভারত ইতিমধ্যেই অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর পরিকল্পনা করে ফেলেছে। চেন্নাইয়ে দলের জয়ে হার্দিক যেভাবে সাহায্য করেছিল, এটা দলের ব্যাটিং গভীরতার কথা স্পষ্ট জানান দেয়।’প্রশ্ন উঠছে, ভারত ভালভাবেই জানে কীভাবে অস্ট্রেলিয়ার মতো শক্তিশালী দলকে হারাতে হয়। সেজন্য ভারতীয় স্কোয়াডে রয়েছে একাধিক ক্রিকেট মস্তিষ্ক। হঠাৎ সাকিব ভারতকে পরামর্শ দিতে গেলেন কেন! ভারতও বা সাকিবের পরামর্শ খোলা মনে গ্রহণ করবে, তারও বা নিশ্চয়তা কী! সাকিব বরং নিজের খেলার উন্নতির দিকে নজর দিন। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই মজা করে বলছেন, ব্যাপারটা অনেকটা ‘বিড়ালকে মাছ খাওয়া শেখানোর মতো’।যাইহোক, সাকিবের পরামর্শ শুনে ভারতীয় ক্রিকেটাররাও যে হেসে ফেটে পড়বেন না, এমনটা কে বলতে পারে!

এ সম্পর্কিত আরও