Mountain View

নাইজেরিয়া জাতীয় ক্রিকেট টিমের ইতিহাস ও বিস্তারিত

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৭ at ১২:৩৩ অপরাহ্ণ

জুবায়ের আহমেদ: ফুটবলের জনপ্রিয় দেশগুলোর ক্রিকেট দল এবং ক্রিকেটের পুরাতন কিন্তু সুবিধা করতে পারেনি এমন দলগুলো নিয়ে লেখছি বেশ কিছুদিন ধরে, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল ও উগান্ডা দলকে নিয়ে ইতিমধ্যে লেখেছি, ৪র্থ পর্বে নাইজেরিয়ার ক্রিকেট ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়েই এই আয়োজন

ফুটবলে নাইজেরিয়ার বেশ সুনাম আছে। ফুটবলে বেশ জনপ্রিয়ও দেশটি। নাইজেরিয়ার অনেক বড় বড় ফুটবলার বাংলাদেশে খেলছে বহু বছর ধরে। আর্জেন্টিনা দলও বাংলাদেশে নাইজেরিয়ার সাথে প্রীতি ম্যাচ খেলে কয়েক বছর আগে। ফুটবলের এই জনপ্রিয় দেশটিও ক্রিকেট খেলে শত বছর আগে থেকে।

১৯০৪ সালে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে নাইজেরিয়া। তখন নাইজেরিয়ার একক ক্রিকেট দল না থাকায় গোল্ড কোস্ট (বর্তমানে ঘানা) দলের সাথে একত্রে ক্রিকেট খেলতো নাইজেরিয়া।

১৯০৪ সালে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার পর নিয়মিতই ক্রিকেট খেলে দলটি। প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারনে তখন ক্রিকেট কিছুটা কম আয়োজন হওয়ার কারনে নাইজেরিয়াও নিয়মিত ক্রিকেট খেলতে পারেনি তখন।

১৯৭৯ সালের বিশ্বকাপ থেকে ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ পর্যন্ত এবং এই সময়ের চ্যাম্পিয়ন ট্রফিতেও নাইজেরিয়া ইষ্ট ও সাউথ আফ্রিকা দলের সাথে অন্তর্ভূক্ত হয়ে ক্রিকেটে ও বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করে অর্থাৎ নাইজেরিয়ার ক্রিকেটারও আফ্রিকা দলে সুযোগ পায় ও খেলে।

২০০৩ সালের বিশ্বকাপের আগেই ২০০২ সালে আইসিসির এসোসিয়েটস সদস্যভুক্ত হয় নাইজেরিয়া। মূলত তখনই স্বীকৃত ক্রিকেটে আলাদা পথচলা শুরু হয় তাদের।

আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লীগে ২০০৯ সাল থেকে নিয়মিতই খেলেছে নাইজেরিয়া। তৎপর অদ্যাবধি পর্যন্ত আফ্রিকার দেশগুলোর সাথে নিয়মিত ভাবেই ক্রিকেট খেলে দলটি। বর্তমানে আইসিসি ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লীগের ডিভিশন-৬ এ খেলছে নাইজেরিয়া।

আইসিসির সহযোগী সদস্য হলেও এখনো আন্তর্জাতিক ওয়ানডে, টি২০ ম্যাচ খেলা হয়নি দলটির। বাছাই পর্বেও অংশগ্রহণ করার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি নাইজেরিয়া।

ক্রিকেটের এই ঐতিহ্যবাহী দলটি, পৃষ্ঠপোষকতার অভাব, ফুটবলের জনপ্রিয়তা এবং বিভিন্ন কারনেই ক্রিকেটে জনপ্রিয়তা লাভ করতে পারেনি, আন্তর্জাতিক টেস্ট, ওয়ানডে ও টি২০ জমানায় প্রবেশ করতে পারেনি।

বর্তমানে ক্রিকেট বিশ্বায়নের অংশ হিসেবে পুরনো ঐতিহ্যবাহী দলগুলোকেও উঠে আসার সুযোগ করে দিতে আইসিসিকে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। ফুটবলের মতো পৃথিবীর প্রতিটি দেশে ক্রিকেটকে ছড়িয়ে দেওয়ার কোন বিকল্প নেই।

এ সম্পর্কিত আরও