রবিবার , অক্টোবর ২২ ২০১৭
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / ভুলে যাও কাভানি, নেইমারই পিএসজির বস

ভুলে যাও কাভানি, নেইমারই পিএসজির বস

প্রকাশিত :

দল বদলের বাজারে সবচেয়ে আলোচিত নিউজ ছিল নেইমারের বার্সা ছেড়ে পিএসজিতে যাওয়া।   নেইমারের বার্সা ছাড়ার কারন অনেকে টাকার  কথা বললেও মুলত মেসির ছায়া থেকে বেড় হওয়াই ছিল মুল উদ্দেশ্য সেটা বুঝার বাকি নেই কারো।

এখন প্রশ্ন হল নেইমার কেন মেসির ছায়া থেকে বেড়িয়ে আসতে চেয়েছিল ? উত্তরটাও সহজেই অনুমান করা যায়।   নেইমার পাঁচ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের প্রতিনিধিত্ব করছে দেশটির সেরা তারকা হিসেবে।   ব্রাজিলের মত দেশের একটি সেরা তারকা সবসময়ই চাইবে

নিজের আলোয় আলোকিত হতে এবং অগ্রভাগে থাকতে।   কিন্তু বার্সাতে মেসির কারনে নেইমার পড়ে গিয়েছিল আড়ালেই।   কারন মেসি আগে থেকেই বার্সার সেরা তারকা।   তাই বার্সাতে দুর্দান্ত পারফর্ম করেও নেইমারের থাকতে হয়েছিল মেসির ছায়াতেই।

অন্যদিকে পিএসজি হল অভাগা একটি ক্লাবের নাম।   কেন অভাগা? কারন তারা শক্তিশালী দল গড়লেও চ্যাম্পিয়নস লীগ জয়ের খিদাটা থেকে যেত আড়ালেই।   সেরা তারকার অভাব তারা বোধ করত সবসময়ই।   যেমন চ্যাম্পিয়নস লীগে কোয়ার্টার ফাইনালে ৪-০ গোলে এগিয়ে থেকেও বার্সার কাছে ৬-১ গোলে হেরে বিদায় নিয়েছিল।   তাই শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের জন্য যেকোন কিছুর জন্য প্রস্তুত ছিল পিএসজি।

একদিকে সেরা হতে চায় পিএসজি অন্যদিকে সেরা হতে চায নেইমার।   দুয়ে দুয়ে চার মিলে যাওয়ার কারনেই তো পিএসজিকেই বেছে নিয়েছে নেইমার।

এত টাকা দিয়ে নেইমার আসার পর ক্লাবের চেহাড়াটাই বদলে গেছে পিএসজির।   টিভি সম্প্রচার থেকে আয় বেড়েছে।   বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তা বেড়েছে।   এক নেইমারের জার্সি বিক্রির হার এতই বেশি ছিল বাধ্য হয়ে জার্সি বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে ২ মাসের জন্য।   এই সময়ে শুধু মাত্র জার্সি তৈরির কাজটিই করবে তারা।

ক্লাবে এত জনপ্রিয়তা নিশ্চই কাভানির ভালো লাগেনি।   কারন দলে আগে থেকেই সেরা তারকা সে।   কিন্তু নেইমার চলে আসায় তার শ্রেষ্ঠত্ব আর থাকবে কিনা হয়তো সেটা নিয়ে নিজেই ছিলেন সন্দিহান।   পূর্বের মতই এবার মাঠের খেলাতেও পেনাল্টি ফ্রিকিক নিতেন তিনি।   আবার মাঠের মধ্যে সবচেয়ে হাস্যকর মিসগুলোও করতেন তিনিই।

কিন্তু সেই মধুচন্দ্রিমা কেটে গেছে লিওর বিপক্ষে ম্যাচে পেনাল্টি আর ফ্রিকিক ঝামেলায়।   সেটা নাকি গড়িয়েছে ড্রেসিং রুম পর্যন্ত।   দুই তারকার সমস্যা নিরসনে মাঠে নেমেছিলেন পিএসজি মালিক খেলাফি।   কাভানিকে দিয়েছেন ১ মিলিয়নের প্রস্তাব যাতে পেনাল্টির দাবি ছেড়ে দেয়।   কিন্তু কাভানি নিজের ইগোর জন্য ছাড়েনি দাবি।   নেইমারও অনড় তার দাবীতে।   উভয় সংকটে পিএসজি।

কিন্তু যদি সমস্যার সমাধান না হয় তাহলে ক্ষতিটা হবে কার? ইগোর লড়াইয়ে জিতবে কে ?

এটা সহজেই অনুমেয় যে, মাঠের পারফর্মেন্সে নেইমারের ধারে কাছেও নেই কাভানি।   পেনাল্টি কিংবা ফ্রিকিক দক্ষতায়ও নেইমারের কাছে নেই কাভানি।   অন্যদিকে নেইমারের পায়ের জাদুতে পুরো ফুটবল বিশ্ব আচ্ছন্ন।   সেখানে কাভানির ম্যাচের মধ্যে করে হাস্যকর সব ভুল।   লিওর বিপক্ষে পুরো ম্যাচে বলে মাত্র ২১বার টাচ করেছিলেন কাভানি।    লীগে নিজেদের শেষ ম্যাচে নেইমারকে ছাড়াই খেলতে নেমেছিল পিএসজি।   কিন্তু সেই ম্যাচে কাভানি প্রতিপক্ষের গোল পোস্ট লক্ষ্য করে কোন শটই নিতে পারেনি।

অন্যদিকে নেইমার থাকলে কি হত বলা মুশকিল কিন্তু নেইমার থাকলে অন্যরা সুযোগ পেত সেটা বলার অপেক্ষা রাখেনা।   কারন নেইমার এমন একজন প্লেয়ার যে গোল মুখে ২-৪জনকে অনায়াসে ড্রিবলিং করে পেছনে ফেলে দিতে পারেন।

তাই এমন সোনার ডিম পাড়া হাস, যে হাস নাসের আল খেলাফি কিনেছেন রেকর্ড দামে তাকে অখুশি করে কোন কিছুই করবেনা পিএসজি।   যদি সেটাই হয় আর কাভানি নিজের ইচ্ছায় অনড় থাকে তাহলে তো কাভানিকেই ক্লাব ছাড়তে হবে।   তাহলে পেনাল্টির দাবী তোলাতে কাভানিকে ক্লাব ছাড়তে হলে সেখানে ইগোর লড়াইয়ে কি কাভানির জয় হবে ? মোটেও না বরং পেনাল্টির দাবী না ছাড়ার কারনে এবং নেইমারের সাথে বিরোধিতার কারনে কাভানিকে ক্লাব ছাড়তে বাধ্য করা হলে সেখানে বরং নেইমারেরই জয় হবে।

হয়তো কাভানি খুব শীগ্রই বুঝতে পারবে যে পিএসজিতে কাভানি সেরা ছিল।   কিন্তু এখন নেইমার চলে এসেছে যার নাম মেসি রোনালদোর পরে উচ্চারিত হয়।   হয়তো কাভানি বুঝবে কিন্তু বুঝতে দেরী করলেই ক্লাব ছাড়তে হবে।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাশরাফির হাফসেঞ্চুরি

স্পোর্টস ডেস্ক: অধিনায়ক হিসেবে হাফ সেঞ্চুরির সামনে দাঁড়িয়ে মাশরাফি। বাংলাদেশের তৃতীয় অধিনায়ক হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে …