Mountain View

মিয়ানমারের উস্কানীতে আমরা ধৈর্য্য ধরেছি- বিজিবির মহাপরিচালক

প্রকাশিতঃ সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৭ at ১:২৬ অপরাহ্ণ

মোঃ জাফর আলম,কক্সবাজার প্রতিনিধি,:মিয়ানমারের উস্কানীতে সাড়া দিলে রোহিঙ্গাদের মানবিক সংকটের বিষয়টি আড়াল হয়ে যেতো বলে মন্তব্য করেছেন বর্ডার গার্ড বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন।
সোমবার বিকালে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যাং ইউনিয়নের দুর্গম উনচিপ্রাং এলাকায় অস্থায়ী রোহিঙ্গা বসতি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, মিয়ানমারের হেলিকাপ্টার আমাদের আকাশ সীমা লংঘন করেছে, একটা দেশ এটা করতে পারেনা, আমরা ধৈয় ধরেছি তবে আমরা সম্পূর্ণ প্রস্তুত আছি, সীমান্ত সুরক্ষার জন্য যা করা প্রয়োজন সব করা হবে, আমরা আক্রান্ত না হলে কোন এ্যাকশনে যাবোনা।
উস্কানীতে সাড়া দিলে অন্য আর একটি ফ্রন্ট খুলে যেতো, আমরা সে দিকে যেতে চাইনি উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের হার কিছুটা কমেছে, পরিস্থিতিও আস্তে আস্তে শান্ত হয়ে এসেছে, তারা আমাদেরকে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছে, আগামী নভেম্বরে তাদের সাথে আমাদের বৈঠক হতে পারে।

মেজর জেনারেল আবুল হোসেন বলেন, রোহিঙ্গাদের ব্যবস্থাপনার বিষয়টিও শৃংখলায় আসা শুরু হয়েছে, সেনা বাহিনী কাজ শুরু করেছে, তাদের জনবল এবং লিডারশিপ দুইটায় আছে, খুব শীঘ্রই সব কিছু শৃংখলায় চলে আসবে।

তিনি আরো বলেন, বিাজিবি তাদের মানবিক তৎপরতা অব্যাহত রাখবে, মানবিক কাজের জন্য বিজিবির বাড়তি সদস্য মোতায়ন করা হয়েছে, এখান থেকে রোহিঙ্গারা যাতে কোনদিকে যেতে না পারে সেই জন্য বিজিবির পাশাপাশি পুলিশ র্যাবও কাজ করছে যাতে তারা অন্য কোন দিকে যেতে না পারে।

উনচিপ্রাং এর এই বসতিসহ সব রোহিঙ্গাদেরকে বালুখালিতে নিয়ে যাওয়া হবে, সেখানে সেনাবাহিনী কাজ শুরু করেছে, বালুখালি অনেক বড় জায়গা সেখানে সবার থাকার ব্যবস্থা করা হবে, মনে করেন বিজিবি প্রধান মেজর জেনারেল আবুল হোসেন।

এসময় বিজিবির কক্সবাজার, টেকনাফ ও বান্দরবান আঞ্চলের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বিজিবি প্রধান রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন।

এ সম্পর্কিত আরও