Mountain View

লোকটির দাবি, তিনি ভবিষ্যৎ থেকে এসেছেন

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ১১, ২০১৭ at ৪:০৬ অপরাহ্ণ

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াইয়োমিং রাজ্যের ক্যাসপার শহরে চলতি সপ্তাহে একটি আজব ঘটনা ঘটেছে।  ব্রায়ান্ট জনসন নামের এক লোককে সোমবার রাতে রাস্তায় সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখে তাকে আটক করে পুলিশ।  মুখ তো বটেই.. পুরো শরীর থেকেই বের হচ্ছিল মদের গন্ধ! ফলে নিছক মাতাল ভেবেই ক্যাসপার পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে আসে।

কিন্তু জনসনের কথা শুনে তো চোখ কপালে ওঠার জোগাড় পুলিশের।  মাতাল লোকটির দাবি, সে আসলে সময় ভ্রমণ করে ভবিষ্যত থেকে এসেছে।  আর সেই সময়টা হচ্ছে ২০৪৮ সাল।

তার দাবি, মাতাল হওয়ার পেছনে যারা দায়ি তারা মানুষ নয়.. এলিয়েন।

জনসন জানায়, আগামী বছরই অর্থাৎ ২০১৮ সালেই বিশ্ব এলিয়েনের দেখা পাবে।  এবং দূর মহাকাশের বুদ্ধিমান প্রাণী পৃথিবীতে এসে প্রভাব বিস্তাব করবে।  যা মানবজাতির জন্য কখনই সুখকর হবে না।  এই বিষয়ে সাবধান করতেই তার অতীতে আসা!

অবশ্য তার আসার কথা ছিল ২০১৮ সালে।  কেননা সে বছরই এলিয়েনের আবির্ভাব ঘটবে।  কিন্তু সময় যন্ত্রের ভুলে সে এক বছর আগেই চলে এসেছে।

ক্যাসপার পুলিশ তাকে মাতাল অবস্থায় রাস্তায় উদ্ভ্রান্তের মতো হাঁটা-চলা করতে দেখে সন্দেহের বশে আটক করে।  মাতাল হলেও সে ছিল বেশ বিনয়ী।  সেই সময় তার শরীর থেকে মদের গন্ধ পেলেও তা কিছুটা ব্যতিক্রম বলেই পুলিশের মনে হয়।

ক্যাসপার পুলিশ জানায়, আটকের পর তার চোখ ছিল রক্তবর্ণ আর ছলছলে, কথাও কিছুটা জড়িয়ে যাচ্ছিল।  পুলিশ পরীক্ষার পর দেখে তার শরীরে এলকোহলের মাত্রা ছিল ১৩৬ এর উপরে।  কিন্তু এত বেশি মাত্রার এলকোহল থাকলেও তার কথা ছিল সাজানো।

তাছাড়া এই লোক যে শহরের নয়, পরিচয় ঘেঁটে সেটাও বেরিয়ে আসে।  আর তাতেই লোকটিকে ঘিরে সন্দেহের মাত্রা বাড়তে থাকে পুলিশের।  তবে এই লোকটি কি সত্যিই ভবিষ্যত থেকে আসা? কিন্তু তার এমন দাবির ভিত্তি কি?

জনসনের দাবি, মানব কল্যাণের উদ্দেশ্যেই তার অতীতে চলে আসা।  শহরের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করার দাবি জানিয়ে সে বলে, তাকে জরুরি ভিত্তিতে সংবাদটা পৌঁছে দেয়া দরকার।  কেননা, আসছে বছর মানুষকে এলিয়েন থেকে সাবধান হতে হবে।  তাদের যত দ্রুত সম্ভব প্রতিরোধের প্রস্তুতি নিতে হবে।

নেশা কেটে গেলেও নিজের দাবি থেকে সরে আসেনি জনসন।  পুলিশ অবশ্য তার কথা বিশ্বাস করেনি।  মাতাল ব্যক্তি অনেক ধরনের আজগুবি কথা ও কাণ্ডকীর্তি করে থাকে।  তবে আজকের বিজ্ঞান কিন্তু সময় ভ্রমণের ধারণাকে উড়িয়ে দেয় না!

সক্ষমতা অর্জন বা আবিস্কার করতে না পারলেই যে তাকে উড়িয়ে দিতে হবে, আধুনিক বিজ্ঞান তেমনটা নয়।  চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইও বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানী পল সাটার জানান, আমাদের সক্ষমতা না থাকলেও সময় ভ্রমণ কোনো কাল্পনিক বিষয় নয়।  আলোর গতি জয় করতে পারলেই হয়তো বা সময়কে অতিক্রম করা সম্ভব হবে।

পল যে ধারণার কথা জনসমক্ষে আনেন, তা কিন্তু আলবার্ট আইনস্টাইন বহু আগেই জানিয়েছিলেন।  তিনিও সময় ভ্রমণের জন্য আলোর গতিকে জয় করার কথা বলেছিলেন।  এমন ধারণা নিকোলা টেসলার মুখেও শোনা গেছে।  কারও কারও ধারণা টেসলা তা পরীক্ষা করে সফলও হয়েছিলেন!

হালের অনেক বিজ্ঞানীও বলে থাকেন সময় ভ্রমণ সম্ভবই শুধু নয়, তার ব্যবহারও হচ্ছে! উদাহরণ হিসেবে তারা রুশ নভোচারী সার্গেই ক্রিকালেভ’এর কথা বলে থাকেন।  মহাকাশে ৮০৪দিন কাটিয়ে পৃথিবীতে ফিরে তিনি দেখেন সাধারণ সময় থেকে ০.০২ সেকেন্ড পিছিয়ে গেছেন।

বৃহস্পতিবার বিশ্বের প্রায় প্রতিটি শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যমে খবরটি প্রকাশ পেয়েছে।  হাফিংটন পোস্ট, দি ইন্ডিপেনডেন্ট, ফক্স নিউজ, মেট্রো নিউজ, ইউএস নিউজ, ডেইলি স্টারসহ শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যমে গুরুত্বের সঙ্গে প্রতিবেদনটি প্রকাশ পায়।  জনসনের দাবিটিকে তাই নিছক মাতালের প্রলাপ বলে মানতে নারাজ এলিয়েন বিশেষজ্ঞরা।

এ সম্পর্কিত আরও