ঢাকা : ১৯ অক্টোবর, ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ২:০৩ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / বিসিবির অন্তর্বর্তী পরিচালনা, ব্যাখ্যা নেই কারও কাছেই

বিসিবির অন্তর্বর্তী পরিচালনা, ব্যাখ্যা নেই কারও কাছেই

প্রকাশিত :

আগামী ১৭ অক্টোবর শেষ হচ্ছে নাজমুল হাসান পাপনের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের চার বছরের মেয়াদ। তার ১৪ দিন পর ৩১ অক্টোবর হতে যাচ্ছে বিসিবির নির্বাচন। নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে নবনির্বাচিত কমিটিকে দায়িত্ব হস্তান্তর করতে হবে পুরনো কমিটিকে। কিন্তু ১৭ অক্টোবরের পর বোর্ড কারা পরিচালনা করবে সেটির সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা নেই পাঁচ সদস্যের নির্বাচন কমিশনের কাছে।

বৃহস্পতিবার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার জন্য সংবাদ সম্মেলনে এলে বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন রাখা হয় বির্বাচন কমিশনের কাছে। কিন্তু সদুত্তর মেলেনি। বিসিবি গঠনতন্ত্র (সংশোধিত-২০১৭) বের করে বিভিন্ন ধারায় চোখ বোলাতে থাকেন দায়িত্বপ্রাপ্তরা। শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ওমর ফারুক গঠনতন্ত্র উল্টে-পাল্টে দেখে বলেন, গঠনতন্ত্রের অনুচ্ছেদ ১৩এর ২এর ‘ঙ’ ধারায় বলা আছে নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার ১৫ দিনের মধ্যে পূর্বতন পরিচালনা পর্ষদ নবনির্বাচিত পরিচালনা পর্ষদের নিকট দায়িত্বভার হস্তান্তর করবেন।

তিনি বোঝাতে চান, এর অর্থ মেয়াদ পার হয়ে যাওয়া কমিটিই দায়িত্ব চালিয়ে যাবে। যদিও গঠনতন্ত্রে এ সম্পর্কে সুস্পষ্ট কোন নির্দেশনা নেই।

নির্বাচন কমিশনের কাছে তাই প্রশ্নটি ছিল নির্বাচনের আগের ১৪ দিন বিসিবি কীভাবে পরিচালিত হবে? প্রশ্নটি আরেকবার তাদের স্মরণ করিয়ে দেওয়া হলে নির্বাচন কমিশনাররাও একে অন্যের সাথে কানাকানি করতে থাকেন। পরে স্থানীয় সরকার কাঠামোর কথা উল্লেখ করেন তারা। কিছুক্ষণ পর আরেক কমিশনার বলেন, ‘আসলে আমরা নির্বাচন কমিশন চিন্তা করছি কেবল নির্বাচন নিয়েই। এখন কমিটির মেয়াদ কী থাকবে সেটা গঠনতন্ত্রে বলা আছে। আমরা দেখে উত্তরটা দিচ্ছি।’

গঠনতন্ত্র ঘেঁটে পরে ব্যাপারটি নিয়ে কিছুই পাননি তারা। শেষে বলেন, ‘বিসিবি মিটিং করে ইলেকশন কমিটি গঠন করে দিয়েছে। আমাদের কাজ নির্বাচন পরিচালনা করা। বিসিবি কীভাবে পরিচালিত হবে সেটি নির্বাচন কমিশনের চিন্তা নয়।’

সংবাদ সম্মেলনের শেষ ভাগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার জানান, যে কমিটি এখন আছে তারাই বিসিবি পরিচালনা করবে। কিন্তু বড় কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না। সময়টাতে নন ইলেকটেড পারসন যারা ম্যানেজম্যান্টে আছেন, তারা বিসিবি পরিচালনা করবেন। কিন্তু এ ব্যাপারটি গঠনতন্ত্রে উল্লেখ আছে কিনা; সেই প্রশ্ন উঠছে ভালোমতই।

এর আগে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসানও একই রকমের কথা বলেছিলেন। তার মতে ক্ষমতা হস্তান্তরের আগ পর্যন্ত বর্তমান সদস্যরাই বোর্ডের স্বাভাবিক কার্যক্রম এগিয়ে নেবেন। কেবল নীতিগত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা তাদের থাকবে না।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

নারী নির্যাতন মামলার আসামী যুবরাজ!

নারী নির্যাতনের মতো স্পর্শকাতর একটি মামলায় ফেঁসে গেছেন ভারতের তারকা ক্রিকেটার যুবরাজ সিং। সম্প্রতি এক …