আইন প্রণয়ন সহজ করতে আইএফসির সঙ্গে চুক্তি সই

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ১৩, ২০১৭ at ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ

দেশে যেকোন বিষয়ে আইন প্রণয়নের ক্ষেত্রে অধিক যথার্থতা ও স্বচ্ছতা বজায় রাখতে বিশ্ব ব্যাংকের অঙ্গ সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশনের (আইএফসি) সাথে একটি চুক্তিতে সাক্ষর করেছে লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগ। এর মাধ্যমে আইন প্রণয়ন প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন বিষয়ে পদ্ধতিগত পর্যবেক্ষণ, পর্যালোচনা এবং ফলাফল নিরুপণ করা যাবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁয়ে এই চুক্তির সাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়। লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের পক্ষে যুগ্ম সচিব শাহেদ আহমেদ এবং আইএফসির ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি ম্যানেজার এহসানুল আজিম এই সহযোগিতা চুক্তিতে সাক্ষর করেন। এসময় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক উপস্থিত ছিলেন।

এই উদ্যোগকে যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে আখ্যায়িত করে আইনমন্ত্রী বলেন: এতদিন আমরা আইন প্রণয়ন করতাম। সেই আইন পাশ হওয়ার পর বিভিন্ন আন্দোলনের মুখে তা আবার সংশোধন করা লাগতো। ফলে অনেক সময় নষ্ট হতো। কিন্তু আজকের এই চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে আইন প্রণয়ন করার আগে আইনের নেতিবাচক ও ইতিবাচক বিষয়গুলি বিবেচনা করা হবে। প্রণীত আইন জনগণের কতটুকু উপকারে আসবে তা বিবেচনা করা হবে। সর্বোপুরি এই পদ্ধতি অবলম্বনে একটা পরিপূর্ণ আইন প্রণয়ন বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

আইএফসির সিনিয়র অর্থনীতিবিদ ড. মাশরুর রিয়াজ বলেন: ২০২১ সালে ৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় অর্জন ও মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হতে হলে এই মুহূর্তে বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি দরকার ব্যবসায়িক পরিবেশের উন্নতি। আর এজন্য স্বচ্ছ আইন প্রণয়ন সবচেয়ে বেশি জরুরি। কারণ আইনি জটিলতার কারণে অনেকে ব্যবসায় এগিয়ে আসছেন না।

ভিয়েতনামের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন: বাংলাদেশের পরে স্বাধীনতা লাভ করেও উন্নতির সবদিক থেকে এগিয়ে রয়েছে এই দেশ। এর কারণ হলো- লেজিসলেটিভ ইম্প্যাক্ট অ্যাসেসমেন্টের ব্যবহার। তাই এখন বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও এই অ্যাসেসমেন্ট জরুরী। এর মাধ্যমে আইনি প্রক্রিয়ার ঝামেলা দূর করে স্বচ্ছতা আনা সম্ভব হবে।

এ সম্পর্কিত আরও