Mountain View

কার্জন হলে ঢাকা কলেজ ছাত্রের কাছে ইভ টিজিংয়ের শিকার ঢাবি ছাত্রী

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৩, ২০১৭ at ১২:৩৫ অপরাহ্ণ


ঢাবি প্রতিনিধিঃ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলে বুধবার সন্ধ্যায় ইভ টিজিংয়ের শিকার হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালেয়র তিন জন ছাত্রী। ঘটনার জেরে পরবর্তীতে ছাত্রলীগের নিজেদের মাঝে মারামারির ঘটনাও ঘটে। বুধবার রাতে কার্জন হলে ঢাবির তিন ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী। এ সময় ঢাবির ফজলুল হক হল ছাত্রলীগের সভাপতি সিসিম ঘটনাস্থলে যান।

তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ও জহুরুল হক হল ছাত্রলীগের সহসম্পাদক সায়েমসহ আরো কয়েকজন মিলে ঢাকা কলেজের ওই শিক্ষার্থীদের মারধর করেন। পরে ঢাকা কলেজের ওই শিক্ষার্থীদের পরিচিতজন ঢাবির এ এফ রহমান হল ছাত্রলীগের নেতা লয়েড, সিয়ামসহ ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী বাংলা একাডেমির সামনে জড়ো হন। সেখানে তাঁরা ছাত্রলীগ নেতা সায়েমকে একা পেয়ে মারধর করেন।

মারধরের শিকার ছাত্রলীগ নেতা সায়েম বলেন, ‘কার্জন হলে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা কয়েকজন মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে, আমি তার প্রতিবাদ করি। পরে আমি বাংলা একাডেমির দিকে বাইক চালিয়ে আসছিলাম। তারা আমাকে একা পেয়ে মারধর করে।’

এ বিষয়ে ঢাবির ফজলুল হক মুসলিম হল ছাত্রলীগের সভাপতি সিসিম বলেন, ‘আমি কার্জন হলে ছিলাম। এ সময় সুফিয়া কামাল হলের এক বান্ধবী আমাকে ফোন করে তিন ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের বিষয়টি জানায়। আমি সেখানে গিয়ে তাঁদের (ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী) বের করে দিই। পরে শুনলাম তারা জহুরুল হক হলের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে মেরেছে।’

জানা গেছে, লয়েড লিংগুস্টিক বিভাগের ছাত্রলীগের কমিটিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং সিয়াম এফ রহমান হল ছাত্রলীগের কর্মী।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এফ রহমান হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান তুষার বলেন, ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করায় তাদের মারধর করে জহুরুল হক হলের সায়েমসহ আরো কয়েকজন। পরে ছাত্রলীগ নেতা লয়েড, সিয়াম সেখানে যান। তবে তাঁরা কাউকে মারধর করেননি।

সায়েম জহুরুল হক হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসিফ তালুকদারের সমর্থক বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে আসিফ তালুকদার বলেন, ঢাকা কলেজ ও এফ রহমান হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী কয়েকজন মেয়েকে উত্ত্যক্ত করছিল। সায়েম তার প্রতিবাদ করলে তাঁরা তাঁকে মারধর করে। এ বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানীর মুঠোফোন নম্বরে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তা রিসিভ হয়নি।

এ সম্পর্কিত আরও