Mountain View

কিশোরগঞ্জে ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ণের অভিযোগ

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৩, ২০১৭ at ৮:৩১ অপরাহ্ণ

আরিফুররহমান,(কিশোরগঞ্জ. প্রতিনিধি):পাকুন্দিয়ার ৩২নং দক্ষিণ চরটেকী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আফাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ণের অভিযোগ ওঠেছে। এ ব্যাপারে বুধবার বিকালে ছাত্রীর মা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তবে অভিযুক্ত শিক্ষক প্রভাবশালী হওয়ায় ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চলছে বলে শিশুটির পরিবার অভিযোগ করেছেন।ইউএনও’র কাছে দেয়া লিখিত অভিযোগে বলা হয়, তৃতীয় শ্রেণির ওই ছাত্রী অন্যান্য দিনের মতো বুধবার বিদ্যালয়ে গেলে বাংলা ক্লাশ চলার সময়ে সহকারী শিক্ষক মো. আফাজ উদ্দিন ছাত্রীটিকে শারীরিক যৌন নিপীড়ণ করেন। স্কুল ছুটির পর বাড়িতে এসে শিক্ষকের যৌন নিপীড়ণের শিকার ছাত্রী তার মায়ের কাছে ঘটনাটি খুলে বলে।

অভিযোগে আরো বলা হয়, সহকারী শিক্ষক মো. আফাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে আরো একাধিক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ণের অভিযোগ রয়েছে। যৌন নিপীড়ণের শিকার হয়ে অনেক ছাত্রী এই স্কুল ছেড়ে অন্য স্কুলে গিয়ে ভর্তি হয়েছে বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।তবে অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক মো. আফাজ উদ্দিন তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে শতভাগ মিথ্যা উল্লেখ করে বলেন, পূর্বশত্রুতার জের ধরে আমার বিরুদ্ধে এই মিথ্যা অভিযোগ আনা হয়েছে।

৩২নং দক্ষিণ চরটেকী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান জানান, তিনি বুধবার বেলা ১১টার পর থেকে বিদ্যালয়ে ছিলেন না। বৃহস্পতিবার স্কুলে গিয়ে ওই শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ডেকে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, ওই ছাত্রী ক্লাশের পড়া না পারায় মাথায় হাত বুলিয়ে সহকারী শিক্ষক মো. সায়েদুজ্জামান ওরফে আফাজ উদ্দিন তাকে আদর করে শাসন করেছেন। অভিযোগের বিষয়টি তার কাছে ষড়যন্ত্রমূলক মনে হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান।এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অন্নপূর্ণা দেবনাথ জানান, তারা খোঁজ নিয়ে দেখেছেন আফাজ উদ্দিন নামে ওই বিদ্যালয়ে কোন শিক্ষক নেই। অভিযোগে অভিযুক্ত শিক্ষকের প্রকৃত নাম দেয়া হয়নি। সংশোধন করে পুনরায় অভিযোগ দেয়ার পর বিষয়টির ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট পাঠানো হবে।

এ সম্পর্কিত আরও