Mountain View

পশ্চিমবঙ্গে ‘পদ্মাবতী’র প্রথম প্রদর্শনী চান মমতা

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৫, ২০১৭ at ১:১৩ অপরাহ্ণ

বলিউড পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালির ‘পদ্মাবতী’ ছবির মুক্তি নিয়ে চলছে তোলপাড়। ছবিটির মুক্তির বিরুদ্ধে ভারতের কয়েকটি রাজ্যে প্রতিবাদ চলছে। গুজরাট, রাজস্থান, উত্তর প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, পাঞ্জাবসহ বিভিন্ন রাজ্যে এই ছবি মুক্তির ওপর রাজ্য সরকার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কিন্তু ব্যতিক্রম পশ্চিমবঙ্গ। রাজ্যের মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই রাজ্যে ‘পদ্মাবতী’ ছবি মুক্তি দেওয়ার জন্য এগিয়ে এসেছেন।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গে ‘পদ্মাবতী’কে স্বাগত। কলকাতায়ই হোক ‘পদ্মাবতী’ ছবির প্রথম প্রদর্শনী (প্রিমিয়ার)।’

তিনি পরিচালকসহ ‘পদ্মাবতী’র  পুরো টিমকে কলকাতায় আসার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

শুক্রবার এক আলোচনা সভায় মুখ্যমন্ত্রী এই আমন্ত্রণ জানান।

গত ২০ নভেম্বর এক টুইট বার্তায় পদ্মাবতী নিয়ে বিতর্ক দুর্ভাগ্যজনক বলে মন্তব্য করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুক্তির জন্য অপেক্ষমাণ ‘পদ্মাবতী’ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয় রানি পদ্মাবতীর একটি নাচ আর আলাউদ্দিন খিলজির স্বপ্নে রানির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ একটি দৃশ্য নিয়ে। যদিও পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালি বারবার বলেছেন, ওই দৃশ্যটি ছবিতে নেই। তাতেও ক্ষোভ প্রশমিত হয়নি। বরং বিক্ষোভকারীরা দাবি তুলেছে, ছবির সব বিতর্কিত অংশ বাদ দিতে হবে। তা না হলে এই ছবির মুক্তি দেওয়া হবে না।

এদিকে ‘পদ্মাবর্তী’ নিয়ে বির্তক নতুন মোড়ে ঘুরছে শুক্রবার থেকে। এদিন দেশটির রাজস্থানের রাজধানী জয়পুরের বিখ্যাত নাহারগড় দুর্গের বুরুজ থেকে ২৩ বছর বয়সের এক তরুণের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহের পাশে পাথরে কালি দিয়ে হিন্দিতে লেখা, ‘আমরা শুধু কুশপুতুল লটকাই না’। আর একটি পাথরে লেখা, ‘পদ্মাবতীর বিরোধিতা’।

তবে ওই তরুণ আত্মহত্যা করেছে না খুন হয়েছে সে বিষয়ে পুলিশ এখনো নিশ্চিত নয়।

‘পদ্মাবতী’ নিয়ে সেই প্রথম দিন থেকে যারা খড়্গহস্ত, সেই করণি সেনার নেতা লোকেন্দ্র সিং কালভি শুধু বলেছেন, ঘটনাটি দুর্ভাগ্যজনক। এমন হওয়া উচিত ছিল না।

১৯০ কোটি টাকায় তৈরি পদ্মাবতী এখনো ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পায়নি। ‘পদ্ধতিগত ত্রুটি’র কারণে সেন্সর বোর্ড ছবিটি প্রযোজকের ঘরে ফেরত পাঠিয়েছে। অথচ গত বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ বোর্ড অব ফিল্ম ক্লাসিফিকেশন পদ্মাবতীকে বিনা প্রশ্নে ‘আনকাট’ ছাড়পত্র দিয়েছে। ইতিহাস বিকৃতি অথবা রাজপুত জাত্যভিমানে আঘাত লাগা নিয়ে কোনো প্রশ্ন তারা তোলেনি। অবশ্য পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালী  এই আনন্দে বানভাসি নন।

এদিকে বানসালীর এই বদান্যতা কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের মন অবশ্য ভোলাতে পারেনি। মনোভাব তাদের এখনো মারকাটারি। রাজস্থানের করণি সেনা কিংবা যারা দীপিকা পাড়ুকোন ও বানসালীর মাথার দাম কুড়ি কোটি টাকা ধার্য করেছে,তাদের দাবি,আগে তাদের সিনেমাটা দেখিয়ে সন্তুষ্ট করতে হবে,তারপর অন্য কথা।

বিতর্ক ও বিরোধের ফলে বানসালীরা ছবি মুক্তির তারিখ পিছিয়ে দিয়েছেন। পয়লা ডিসেম্বরের জায়গায় এখন জানুয়ারি। তবে তার আগে প্রয়োজন সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র। ফলে ‘পদ্মাবতী’র রেশ শেষ পর্যন্ত যে কোথায় গিয়ে ঠেকবে, এ মুহূর্তে তা অজানা।

এ সম্পর্কিত আরও