A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ / খেলাধুলা / নতুন যা কিছু দিল এবারের বিপিএল

নতুন যা কিছু দিল এবারের বিপিএল

 

৪ নভেম্বর শুরু হয়ে ১২ ডিসেম্বর শেষ। প্রায় দেড় মাসের বিপিএল-উৎসব শেষ হয়েছে কাল। দেশের জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট যদিও এবারও থাকেনি বিতর্কমুক্ত। তবে বিতর্কের মাঝেও ছিল কিছু আশাজাগানিয়া দিক। আগের চার বিপিএলের তুলনায় এবার বিপিএলে দেখা গেছে কিছু নতুনত্ব।

১. নতুন চ্যাম্পিয়ন
গতবারের মতো এবারও বিপিএলের ফাইনালে ওঠে ঢাকা। তবে সাকিব আল হাসানের দল শেষ পর্যন্ত জিততে পারেনি শিরোপা। বিপিএল দেখেছে নতুন চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। যদিও অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার এটাই প্রথম শিরোপা জয় নয়। এ নিয়ে চারবার বিপিএল জিতলেন মাশরাফি।

২. টুর্নামেন্ট শুরু ঢাকার বাইরে
প্রথমবারের মতো বিপিএল শুরু হয়েছে ঢাকার বাইরে। কোনো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছাড়া ৪ নভেম্বর সিলেট সিক্সার্স-ঢাকা ডায়নামাইটস ম্যাচ দিয়ে বিপিএল-অভিষেক সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের। নান্দনিক সৌন্দর্য ও আধুনিক সুযোগ-সুবিধায় ভীষণ প্রশংসিত হয়েছে স্টেডিয়ামটি। যে কদিন বিপিএল চলেছে, সিলেট শহরও রূপ নিয়েছিল উৎসবের নগরে।

৩. টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই তারকারা
বিপিএলে আগের চার আসরেও দেখা গেছে অনেক বড় তারকা খেলোয়াড়দের। তবে বেশির ভাগই খেলেননি টুর্নামেন্টের পুরোটা। যাঁরা খেলেছেন, তাঁরা দেখে গেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিয়েছেন বহু আগেই। এবার বিপিএলে ছিল ভিন্ন দৃশ্য। ক্রিস গেইল, জস বাটলার, এভিন লুইস, হাসান আলী, ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, রশিদ খানদের মতো তারকারা ছিলেন টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই। বেশির ভাগ তারকাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বড় নাম। শুধু খেলোয়াড় কেন; মাহেলা জয়াবর্ধনে-টম মুডিদের মতো তারকা কোচরাও বিপিএলকে সমৃদ্ধ করেছেন।

৪. দর্শকে ভরা গ্যালারি
আগের চার বিপিএলে দৃশ্যটা দেখা গেছে নিয়মিতই। হাতে গোনা কিছু ম্যাচ বাদে গ্যালারি ফাঁকাই পড়ে থেকেছে। এবার ৯০ শতাংশ ম্যাচেই ছিল স্টেডিয়াম কানায় কানায় পূর্ণ। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে পাঁচ-ছয়টি ম্যাচে দর্শক উপস্থিতি কম থাকলেও চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম ও সিলেট প্রতিদিন ছিল দর্শকে টইটম্বুর।

৫. এক টিকিটে দুই দিন
এটা অবশ্য ইতিবাচক কোনো খবর নয়। ১০ ডিসেম্বর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস-রংপুর রাইডার্সের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার বৃষ্টিবাধায় থমকে গেলে অনেক নাটকের পর গড়িয়েছে দ্বিতীয় দিনে। শুধু বিপিএল কেন, টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে এমন ম্যাচ কয়টা আছে, খুঁজে পাওয়া কঠিন। দর্শকেরা অবশ্য এক টিকিটেই দুদিন ম্যাচটা দেখার সুযোগ পেয়েছেন।

৬. কাঠগড়ায় মিরপুরের উইকেট
মাঠের পারফরম্যান্স ছাপিয়ে বিপিএলের শেষ পর্বে আলোচনায় চলে এসেছে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের উইকেট। উইকেট নিয়ে এত আলোচনা-সমালোচনা এর আগে কমই হয়েছে। প্রায়ই লো স্কোরিং ম্যাচ দেখে দর্শকেরা যেমন হতাশ, হতাশ দেশি-বিদেশি খেলোয়াড়, কোচরাও। টি-টোয়েন্টি-বান্ধব উইকেট তৈরি করতে পারছেন না, এমন অভিযোগে বেশ চাপে ছিলেন মিরপুরের কিউরেটর গামিনি ডি সিলভা।

৭. পাঁচ বিদেশির বিতর্ক
এ বিতর্কের শুরু টুর্নামেন্টের আগেই। ২০১২ ও ২০১৩-এর বিপিএলে পাঁচ বিদেশি খেলানোরই নিয়ম ছিল। পরের দুই আসরে সংখ্যাটা ছিল ৪। আবারও পাঁচ বিদেশিতে ফেরায় অসন্তুষ্টি ছিল স্থানীয় খেলোয়াড়দের। এ নিয়ে যে বিতর্ক হয়েছে, আগে সেটি দেখা যায়নি খুব একটা। বিদেশি খেলোয়াড়দের আধিক্যে স্থানীয় খেলোয়াড়দের সুযোগ পাওয়া ও ভালো খেলা নিয়ে ছিল সংশয়। তবে ইতিবাচক দিক হচ্ছে, চ্যালেঞ্জটা স্থানীয়রা নিয়েছেন এবং উতরেও গেছেন। বিদেশি খেলোয়াড়দের আধিক্য থাকার পরও ধারাবাহিক ভালো খেলেছেন প্রায় সব দলেরই স্থানীয় খেলোয়াড়েরা।

বিপিএলের প্রতি দর্শকদের আগ্রহ ক্রমেই বাড়ছে। মাঠে বিপুল দর্শকের উপস্থিতি সেটিই বলে। আগ্রহটা পরিপূর্ণভাবে কাজে লাগাতে হলে মান বাড়াতেই হবে টুর্নামেন্টের। খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক, ফিক্সিং—এসব নিয়ে এবার তেমন কিছু শোনা না গেলেও একেবারে বিশৃঙ্খলামুক্ত হয়নি বিপিএল। বিপিএলের ম্যাচ যারা সম্প্রচার করছে, তাদেরও আধুনিক হওয়ার দাবি উঠেছে।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

ইন্টারের জার্সিতে রেকর্ড ইকার্দির, আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থাকবেন?

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট: ইতালিয়ান সিরি ‘আ’ তে গোলের পর গোল করে চলেছেন ইন্টার মিলানের আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার …