A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > সর্বোচ্চ ডিসমিসাল তালিকায় সেরা দশে আছেন যে যে উইকেট রক্ষক
Mountain View

সর্বোচ্চ ডিসমিসাল তালিকায় সেরা দশে আছেন যে যে উইকেট রক্ষক

ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে সেরা উইকেট কিপারের কথা বললে কার নাম আপনার মাথায় আসবে? হয়তো কুমার সাঙ্গাকারা কিংবা গিলক্রিস্ট কিংবা মার্ক বাউচার আবার আসতে পারে মঈন খান, ইয়ান হিলির নাম ও। তবের এদের মধ্যে কে সর্বকালের সেরা উইকেট কিপার তা নিয়ে আছে নানা তর্ক-বিতর্ক। বিভিন্ন জনের আছে বিভিন্ন মত।

তবে চলুন দেখে নেয়া যাক পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে বিশ্বের সর্বোচ্চ ডিসমিসালের অধিকারী সেরা দশ উইকেট কিপার :১.কুমার সাঙ্গাকারা :ব্যাট হাতে তিনি ছিলেন কতটা শৈল্পিক তা সবারই জানা। কিন্তু গ্লাভস হাতে উইকেটের পিছনেও তিনি ছিলেন অসাধারণ। ৩৬০ ওয়ানডেতে তার ঝুলিতে রয়েছে ৪৮২ টি ডিসমিসাল। তার মধ্যে রয়েছে ৩৮৩ টি ক্যাচ ও ৯৯ টি স্টাম্পিং।২. অ্যাডাম গিলক্রিস্ট :ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে সবচেয়ে বিধ্বংসী ওপেনার হিসেবে যদি তার নাম বলা হয় তাহলে ভুলকিছু বলা হবেনা। তবে উইকেটের পিছনেও তার হাত দুটো যেন ছিলেন ফেবিকলের আঠার মতন। তার ওই হাতকে ফাকি দিয়ে বল খুব কমই ছুটেছে। উইকেট কিপার হিসেবে তার ঝুলিতে রয়েছে ৪৭২ টি ডিসমিসাল। যার মধ্যে ৪১৭ টি ক্যাচ ও ৫৫ টি স্টাম্পিং।

৩. মার্ক বাউচার :উইকেটের পিছনে তিনি এতটাই বিশ্বস্ত ছিলেন যে ব্যাট হাতে সাঙ্গাকারা গিলক্রিস্টের মত না হলেও শুধুমাত্র উইকেট কিপিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়া জায়গা করে নিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার মত দলে। তার ঝুলিতে রয়েছে ২৯৪ ম্যাচে ৪২৪ টি ডিসমিসাল। যার মধ্যে ৪০২ টি ই ক্যাচ আর ২২ টি স্টাম্পিং।৪. মোহেন্দ্র সিং ধোনি:ওয়ানডে ইতিহাসের সেরা দশ উইকেটকিপারদের মাঝে তিনিই এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন। উইকেটের পিছনে তার হাত চলেযেন বিদ্যুৎ এর গতিতে।৩১৪ ম্যাচে তার ঝুলিতে রয়েছে ৪০০ টি ডিসমিসাল। যার মধ্যে ২৯৪ টি ক্যাচ ও ১০৬ টি স্টাম্পিং।৫. মঈন খান :পাকিস্তান ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বকালের সেরা উইকেট কিপার বলা হয় তাকে। ব্যাট হাতেও তিনি ছিলেন যথেষ্ট পারদর্শী। কিপার হিসেবে তার ঝুলিতে রয়েছে ২১১ ম্যাচে ২৮৭ ডিসমিসাল।যার মধ্যে ২১৪ টি ক্যাচ ও ৭৩ টি স্টাম্পিং।

৬. ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম :ব্যাট হাতে ম্যাককুলাম কতটা ভয়ঙ্কর সেটা আমাদের সবারই জানা। কিন্তু গ্লাভস হাতেও তিনি যে ছিলেন অসাধারণ। ক্যারিয়ারের শেষের দিকে উইকেট কিপিরের দায়িত্ব ছেড়ে দিলেও নিঃসন্দেহে তিনি ছিলেন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের সবচেয়ে সফল উইকেট কিপার। তার ঝুলিতে রয়েছে ১৮৫ ম্যাচে ২৪২ টি ডিসমিসাল। যার মধ্যে ২২৭ টি ক্যাচ ও ১৫ টি স্টাম্পিং।৭.ইয়ান হিলি :অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের গিলক্রিস্টের পূর্বে তিনিই ছিলেন সেরা উইকেট কিপার। তার ঝুলিতে রয়েছে ১৬৮ ম্যাচে ২৩৩ টি ডিসমিসাল। যার ১৯৪ টি ক্যাচ ও ৩৯ টি স্টাম্পিং।৮. রশিদ লতিফ :২০০৩ মুলতান টেস্ট যারা দেখেছেন তারা ভালোমতই চিনে রশিদকে। মাটি থেকে বল কুড়িয়ে নিয়ে সেদিন টাইগারদের জয় বঞ্চিত করেন তিনি।বাংলাদেশের বিপক্ষে মাটি থেকে বল কুড়িয়ে ক্যাচের আবেদন করার পর ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন ৬ মাসের জন্য। এরপর আর পাকিস্তানের হয়ে ফেরা হয়নি তার। তবে উইকেটের পেছনে পাকিস্তানের হয়ে যথেষ্ট সফল ছিলেন তিনি। ঝুলিতে রয়েছে তার ১৬৬ ম্যাচে ২২০ ডিসমিসাল। যার ১৮২ টি ক্যাচ ও ৩৮ টি স্টাম্পিং।

৯. রমেশ কালুউথারানা :১৯৯৬ বিশ্বকাপে ওয়ানডে ক্রিকেটকে নতুন রুপ দেয়ার পেছনে জয়সুরিয়ার সাথে যে আরেকজনের ভুমিকা ছিল তিনি রমেশ কালুউথারানা। ব্যাট হাতে কি বিধ্বংসী জুটিই না গড়ে তুলেছিলেন তারা দুজন।।কিন্তু উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতেও রমেশ যে ছিলেন অসাধারণ। ১৮৬ ম্যাচে তার ঝুলিতে আছে ২০৬ ডিসমিসাল যার ১৩১ টি ক্যাচ ও ৭৫ টি স্টাম্পিং।

১০. জেফরি ডুজন :সত্তুর ও আশির দশকের ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেই সর্বজয়ী দলের একজন গর্বিত সদস্য ছিলেন তিনি। মাইকেল হোল্ডিং, এন্ডি রবার্টসদের মতপেসারদের বোলিংয়ে কিপিং করেছেন তিনি। ঝুলিতে তার রয়েছে ১৬৭ ম্যাচে ২০৪ টি ডিসমিসাল যার ১৮৩ টি ক্যাচ ও ২১ টি স্টাম্পিং।

এ সম্পর্কিত আরও

Best free WordPress theme

Check Also

বিশ্বকাপ ফুটবল – ৩২ দলের তালিকা ও পয়েন্ট টেবিল

গ্রুপ এ দল ম্যাচ জয় হার ড্র গো.ব্য পয়েন্ট রাশিয়া ২ ২ ০ ০ ৭ …