ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ইতিহাস গড়তে ফাইনাল যুদ্ধে নামছে বাংলাদেশ

20161010115649

 

স্পোর্টস ডেস্ক : রোববারের ম্যাচে জয় পাওয়ায় অধিনায়ক মাশরাফি বিন মতুর্জার সামনে হাতছানি ঘরের মাঠে টানা সপ্তম সিরিজ জয়ের রেকর্ড গড়ার। সে জন্য চট্টগ্রামের ম্যাচে ভাল সুযোগই দেখছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।চট্টগ্রামেই হবে দুই দেশের ফাইনাল যুদ্ধ।
২০১০ সালে মাশরাফি বিন-মতুর্জা অধিনায়কের দায়িত্ব পাবার পর বিস্ট্রলে প্রথম দ্বিপাক্ষিক সিরিজে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জয় পেয়েছিলো বাংলাদেশ। প্রায় ছয় বছর পর মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে একই চিত্র ফিরিয়ে এনেছেন টাইগার দলপতি। জ্যাক বলকে আউট করে ৩৪ রানের জয় ছিনিয়ে পুরো বাংলাদেশকে উৎসবে মাতান ব্যাটিংয়ে ৪৪ রান আর চার উইকেট শিকার করে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ মাশরাফি।
মাহমুদুল্লার ৭৫ রান আর অষ্টম উইকেট জুটিতে মাশরাফি-নাসিরের ৬৯ রানের পার্টনারশিপে ইংলিশদের ২৩৯ রানের মোটামুটি টাগের্ট ছুড়ে দেয় টাইগাররা। তবে ইংলিশদের জয়ের লক্ষ্যটা কঠিন করে তোলেন মাশরাফি তাসকিন-সাকিব।
এবার সিরিজ জয়ের দিকে তাকিয়ে মাশরাফি। ইতিহাস গড়তে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ফাইনাল ম্যাচে মাঠে নামছে বাংলাদেশ টিম। দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে সিরিজে ফিরেছে বাংলাদেশ। এবার আশা সিরিজ জয়ের। এ নিয়ে স্বাগতিক অধিনায়ক বলেন, ‘সুযোগ আছে। হবে কি না, সেটা তো বলা যাচ্ছে না। তবে খুব ভালো সুযোগ আছে। স্পেশালি ধরেন এ রকম একটা ম্যাচ জেতার পরে মোরালি সবই ভালো অবস্থায় থাকার কথা।
’‘সবাই যদি ফিট থাকি এবং চিটাগংয়ে যেয়ে ভালোমতো প্রিপারেশন নিতে পারি, অবশ্যই সুযোগ আছে।’-বলেন ম্যাশ।
নিজের পারফর্মেন্সের চেয়েও দলের জয়কেই গুরুত্ব দিয়েছেন টাইগার কাপ্তান। তবে মাঠে খেলেয়াড়দের সংযত থাকারও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। ম্যাশ ওই সময়টাতে বেশ উত্তেজিত ছিলাম। অনেক সময় এমটা হয়ে যায়। তবে মাঠে খেলেয়াড়দের সংযত থাকাই উচিত।
ম্যাচটা হাতছাড়া হওয়ায় অখুশি ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। তবে সিরিজ জয়ের সুযোগ থাকায় সেটা কাজে লাাগাতে চান ১২-ই অক্টোবর চট্টগ্রামে হতে যাওয়া সিরিজের শেষ ও তৃতীয় ওয়ানডেতে।
বাটলার বলেন, ম্যাচটা হেরে আমরা অখুশি। তবে যে অবস্থায় আছি সেটা ইতিবাচক। এখনো সিরিজ জয়ের সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ দল সিরিজে সমতায় ফেরার ভক্তদের মনে ছিলো দারুণ উচ্ছাস। সেসময় পুরো স্টেডিয়াম ছিলো উৎসবে মুখর।

ইংল্যান্ড সিরিজটি হবে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ — মাশরাফি

20161006201023
স্পোর্টস ডেস্ক: টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার দৃষ্টিতে শুক্রবার থেকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শুরু হওয়া তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে কেউই ফেভারিট নয়। প্রথম ওয়ানডের আগে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বলেন, ‘এই সিরিজে কেউই ফেভারিট নয়। সিরিজে অনেক বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে এবং এ জন্য আমরা প্রস্তুত।’
দেশের মাটিতে টানা ছয়টি দ্বিপক্ষীয় সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশে। পাকিস্তান, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার মত বিশ্বসেরা দলগুলোকে দাপটের সাথেই হারিয়েছে টাইগাররা। তাই এমন পরিসংখ্যানের জন্য দেশের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে বাংলাদেশকে ফেভারিট বলছেন অনেকে। এমনকি প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ডও ফেভারিট বলছে বাংলাদেশকে। কিন্তু এমন কথার সাথে একমত নন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি। তার মতে, ‘এই সিরিজে কেউই ফেভারিট নয়। আর আমাদেরকে ফেভারিট বলা কঠিন। আমাদের মত ইংল্যান্ডও ভালো ক্রিকেট খেলছে। তাই সিরিজে ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার জন্য আমরা প্রস্তুত। আশা করছি দারুণ এক সিরিজ হবে।ধারাবাহিকতা ধরে রেখে ইংল্যান্ড সিরিজেও ভালো খেলতে চান উল্লেখ করে মাশরাফি যোগ করেন, কাউকে সামর্থ্য দেখানোর জন্য আমাদের কেউই খেলে না। আমাদের অবস্থান ও পারিপার্শ্বিকতা যদি চিন্তা করেন তবে আমরা এখন ভালো খেলছি। আমাদের কাজ ধারাবাহিকতা ধরে রাখা। প্রতিটি সিরিজই গুরুত্বপূর্ণ। আমার যদি এবারও ভালো খেলি এবং সিরিজ জিততে পারি তবে ভালো লাগবে।’
ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বশেষ দুই ম্যাচের দুটিতেই জিতেছে বাংলাদেশ। তাও আবার বিশ্বকাপের মত মঞ্চে। তবে ঐ দু’টি জয় নিয়ে এখন ভাবতে চান না ম্যাশ, ‘গত দুই বিশ্বকাপের দু’টিতে আমরা জিতেছি। আমাদের জন্য অবশ্যই ভালো স্মৃতি হয়ে আছে। বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে হারানো খুব বড় অর্জনও। তবে এই মুহূর্তে বর্তমান নিয়ে সবাই বেশি ব্যস্ত। ক্রিকেটার হিসেবে অতীত নিয়ে ভেবে লাভ নেই আমাদের। নতুন একটি সিরিজ শুরু হচ্ছে। আমাদের মনোযোগ এখানে। অতীতে কি করেছি, সেই সব ভেবে লাভ নেই।’
সিরিজের প্রথম ম্যাচটা সবসময়ই গুরুত্বপূর্ণ। শুরুটা ভালো হলে সিরিজের বাকী ম্যাচগুলোতে চাপ কম থাকে। তাই সিরিজের শুরুটা ভালো চাইছেন মাশরাফি নিজেও, ‘যে কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজের প্রথম ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা ইতিবাচক আছি। আমরা প্রস্তুত। ভালো খেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। প্রথম ম্যাচটা ভালো খেললে পরবর্তীতে চাপ কমবে।’
তারপরও নতুন সিরিজে নতুন উদ্যমে শুরুর প্রত্যয় মাশরাফির। নতুন সিরিজ নিয়ে দলও বেশি রোমাঞ্চিত বলে জানালেন ম্যাশ, ‘আরেকটি নতুন সিরিজ। নতুন সিরিজ নিয়ে সবাই খুবই রোমাঞ্চিত।’ রোমাঞ্চিত দেশের অগণিত ক্রিকেট ভক্তরাও। আরও একটি সিরিজ জয়ের উল্লাসে ভাসতে প্রস্তুত বাংলাদেশ। পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকার মত বিশ্বসেরা দলগুলোকে হারানো তালিকায় ইংল্যান্ডের নামটি উঠলেও মন্দ হয় না। বাসস।