A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > দুই হাতে বোলিং করে পাকিস্তান কাঁপাচ্ছে ছেলেটি
Mountain View

দুই হাতে বোলিং করে পাকিস্তান কাঁপাচ্ছে ছেলেটি

2handস্পোর্টস ডেস্কঃ পাকিস্তানের অলিগলিতে প্রতিভাবান বোলার জন্ম নেয়। এমন প্রবাদ ক্রিকেট মহলে খুবই পরিচিত। ইমরান খান থেকে ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনিস, শোয়েব আখতার থেকে আজকের মহম্মদ আমিররা তার সবচেয়ে বড় প্রমাণ। বিভিন্ন সময়ে এই সব পাকিস্তানি পেসাররা বাইশ গজে রাজত্ব করে এসেছেন। এবার পাকিস্তানের নবতম ‘আবিষ্কার’ এখন থেকেই ক্রিকেট মহলে সাড়া ফেলে দিয়েছে।

তিনি ২১ বছরের ইয়াসির জান। যিনি নাকি প্রায় সমান দক্ষতায় দুই হাতে বল করতে পারেন! তবে এমন ‘সব্যসাচী’ বোলার যে আগে দেখা যায়নি তেমন নয়। হাসান তিলকরত্নে, গ্রাহাম গুচ, কামিন্ডু মেন্ডিসরাও কখনও কখনও দু’হাতে বল করেছেন। এমনকী রবিচন্দ্রন অশ্বিন দাবি করেছেন, সমান পরদর্শিতায় দুই হাতে বল করতে পারেন তিনিও। তা হলে ইয়াসির জন এত ‘খাস’ কেন? জেনে নিন এক নজরে। ইয়াসির জান ডান হাতে বল করেন ঘণ্টায় ১৪৫ কিলোমিটার বেগে (৯০ মাইল)। প্রয়োজন হলে বাঁ হাতও ঘুরিয়ে নেন। গতি থাকে ১৩৫ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায়। নিম্ন মধ্যবিত্ত ঘর থেকে আসা ইয়াসির ইতি মধ্যেই পাকিস্তান সুপার লিগে লাহৌর কালান্দারস টিমের হয়ে খেলছেন। ডেল স্টেইন তাঁর হিরো। তবে ওয়াকার ইউনিস এবং ওয়াসিম আকরামের বোলিং দেখে বড় হয়েছে ইয়াসির জান। হতে চেয়েছিলেন দু’জনের মতোই। দুই হাতে বল করার অনুপ্রেরণা সর্বকালের অন্যতম সেরা এই দুই ক্রিকেটারের কাছ থেকেই।

এক সাক্ষাত্কারে ইয়াসির জানায়, আমার দেখা প্রথম বিশ্বকাপ ২০০৩। ওই সময়ে ওয়াকার ভাই ও ওয়াসিম ভাইয়ের বোলিং দেখে মুগ্ধ হয়ে যাই। তার পর থেকে দিনরাত খেটে তাঁদের বোলিং স্টাইল কপি করি। কীভাবে ‘আবিষ্কার’ করা গেল ইয়াসিরকে? রাওয়ালপিণ্ডি অনূর্ধ্ব ১৯ ম্যাচে খেলা চলাকালীন হঠাৎ অধিনায়কের করুণ অনুরোধ ইয়াসিরকে,আমরা প্রায় হারতে চলেছি। তুমি কেন বাঁ হাতে বল করছ না? অধিনায়কের নির্দেশে ডান হাতি ইয়াসির স্পেল শুরু করে বাঁ হাতে। ব্যাস, প্রতিপক্ষ কুপোকাত। সেই ম্যাচে ইয়াসিরের দুই হাতে বোলিং দেখে অবাক হয়ে যান কোচ। এরপর প্রাক্তন পাকিস্তানি পেসার আকিব জাভেদের তত্ত্বাবধানে লাহোর কালান্দারস দলের জন্য ট্যালেন্ট হান্ট শুরু হয়। সেখানে ইয়াসিরের বোলিং সাড়া ফেলে দেয়। বাবা সবজি বিক্রি করেন। অনটনে দিন গুজরান হলেও এক বুক স্বপ্নে বাইশ গজ আঁকড়ে আছেন। দেশের হয়ে খেলাই তাঁর একমাত্র স্বপ্ন।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View    Mountain View

Check Also

পগবার জয়সূচক গোল বাতিল!

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট: ম্যাচের তখন ৮০ মিনিট। অস্ট্রেলিয়া-ফ্রান্স ম্যাচ সঙ্গে ১-১ গোলে সমতা। পল পগবা করলেন …

Leave a Reply