A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ > মতামত > ‘জীবনটা শুধু জিপিএ ৫-এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়’
Mountain View

‘জীবনটা শুধু জিপিএ ৫-এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়’

ড. উম্মে বুশরা সুমনাঃ

এসএসসি’র রেজাল্ট হয়েছে। কেউ প্রত্যাশিত রেজাল্ট পেয়ে হাসছে, দুই আঙুল তুলে ভি চিহ্ন দেখিয়ে সাফল্য উদযাপন করছে। কেউবা সেলফি তুলছে। অনেকেই আবার প্রত্যাশিত রেজাল্ট না পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ছে। তার থেকে নিচের রোলের বা মেধার কেউ ভালো ফল করেছে, সেটাও যেন কষ্টটাকে আরো বাড়িয়ে দিচ্ছে। পাশের বাসার আন্টিদের তির্যক কথাও হয়তো মন বিষিয়ে দিচ্ছে। বাবা-মাও প্রথম দিকে খারাপ রেজাল্ট মেনে নিলেও পরে আত্মীয় স্বজন আর প্রতিবেশীদের চাপ সামলাতে পারেন না। শেষ পর্যন্ত সেই সামাজিক চাপ তারা সন্তানের উপর প্রতিফলিত করেন, বকা-ঝকা আবার অনেক ক্ষেত্রে মারধোরও করে বসেন। তারপর সেই অভিমানী সন্তান হয়তো মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে, অনেক সময় চূড়ান্ত রকমের খারাপ পরিণতিও হয়তো ডেকে আনে।

এবার যারা এসএসসি পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করেছে, তাদের সাফল্য অবশ্যই অভিনন্দন যোগ্য। কিন্তু যারা ভালো করেনি, তারা ব্যর্থতার গ্লানিতে ডুবে যাবে, এটা মোটেই কাম্য নয়। তাদের জন্য নিশ্চয়ই ভবিষ্যতে আরও বড় কিছু অপেক্ষা করছে।

জীবনটা শুধু জিপিএ ৫ বা গোল্ডেন ‘এ’র মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। জীবনের সাফল্য মানে অনেক কিছু। পরীক্ষায় সবাই ভালো করবে না, সবাই জিপিএ ৫ পাবে না, কেউবা উত্তীর্ণই হবে না—এটাই স্বাভাবিক। একেক জন একেক মেধার ভিত্তিতে রেজাল্ট পাবে। যে আজ খারাপ রেজাল্ট করেছে, তার মধ্যে হয়তো অন্য কোন ভালো গুন বা প্রতিভা লুকিয়ে আছে যা সে নিজেও জানে না। একসময় হয়তো সেটা প্রকাশ পাবে তার কর্মজীবনে যা তাকে অনেক দূর নিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

হয়তো তার ভিতর ম্যানেজমেন্ট করার চমৎকার প্রতিভা আছে বা হয়তো সে খুব পরিশ্রমী আর ধৈর্যশীল যা তাকে পরবর্তীতে বড় কিছু হতে সাহায্য করবে।
একবার পরীক্ষা খারাপ হয়েছে বলেই যে বারবারই খারাপ হবে, এমন ভাবার কিছু নেই। ভুল থেকে শিখে আগামীবার আবার হয়তো সে অপ্রত্যাশিত ভালো রেজাল্ট করবে। একবার হেরে যাওয়া মানেই সব নয়। ব্যর্থতাই সাফল্যের চাবিকাঠি। দরকার শুধু ধৈর্য আর অধ্যাবসায়। তাই পরীক্ষায় রেজাল্ট খারাপ করে ভেঙে পড়াটা মোটেই ঠিক নয়।

কষ্ট আর অভিমানে এমন কিছু করে বসা ঠিক না যা তার পরিবার-পরিজনদেরকে বিপদে ফেলে দেয়। পরীক্ষার প্রত্যাশিত রেজাল্টের চেয়ে জীবন অনেক বড়। আশেপাশের মানুষের আবেগ বা উল্লাস দেখে মন খারাপের কিছু নাই। ব্যর্থতাকে ছুঁড়ে ফেলে ঘুরে দাঁড়ানোই সফলতা। সেই তো প্রকৃত সফল সেই, যে সব ব্যর্থতাকে পিছনে ফেলে জয়ী হতে পারে।

লেখক: একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি অধ্যাপক।

এ সম্পর্কিত আরও

Best free WordPress theme

Check Also

একটি মেয়ের গ্রেটেস্ট এ্যাসেট অবশ্যই তার মেধা, বিউটি নয়!

রোমানা আক্তার (শুদ্ধবালিকা): তবেতো পারসোনার মালিক যেই ভদ্র মহিলা সেই সবার আগে এই লাইনের জাতাতলে …

Leave a Reply